Close

৮০ শব্দে “কড়ি দিয়ে কিনলাম” পর্যালোচনা


জুয়াইরিয়া হক মাহী


বিংশ শতাব্দীর গ্রেট ডিপ্রেশন তথা অর্থনৈতিক মন্দার যুগে বাঙালির আর্থসামাজিক অবস্থা ও সংসার-আদর্শের দ্বন্দ্বে মনুষ্যত্ববোধের পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে রচিত সুবৃহৎ উপন্যাস কড়ি দিয়ে কিনলাম । অধিবক্তা দীপঙ্করের দৃষ্টিতে সমগ্র কাহিনীর রসভাষ্য যেখানে দীপঙ্কর তার সমগ্র জীবন ‘মানুষ’ এর সন্ধান করে — যার মাঝে নেই অর্থ ও ক্ষমতার লিপ্সা, বরং সহমর্মিতা, আত্মবিস্তৃত তীব্র আদর্শবোধ, ন্যায়পরায়ণতা ও চারিত্রিক দৃঢ়তা বিদ্যমান। জীবনের ঘাত-প্রতিঘাতে, পারিপার্শ্বিক অবস্থা প্রত্যক্ষ করে দীপঙ্কর একসময় কড়ি দিয়ে সুখ ক্রয় করতে চায়। কিন্তু সতীর মৃত্যু তার আজীবনের প্রশ্ন ও নঞর্থক মতবাদের জবাব দেয় যে – কড়ি দিয়ে জীবনের সুখ-শান্তি কেনা অসম্ভব।

বিমল মিত্র কর্তৃক রচিত এ উপন্যাস যেমন পাঠকবৃন্দকে মোহাচ্ছন্ন করতে সক্ষম, তেমনই বসুধৈবকুটুম্বক উদার-মানস গঠনে ভূমিকা রাখবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

11 + five =

Leave a comment
scroll to top